My Poems

আরে আরে দুম!

[সুকুমার রায়-এর ‘দাঁড়ে দাঁড়ে দ্রুম’ কবিতার ছন্দ অনুকরণে।]

রক্তিম সেন

ছুটছে মোটর ষাট-সত্তর, যাচ্ছে তাড়াতাড়ি।
চালাচ্ছে কেউ দেখে শুনে, কেউ ব্যাটা আনাড়ি।
কেউ বা আছে ভীষণ রেগে, দিচ্ছে যে প্রায় চাপা।
কেউ বা চোখে কাজল মেখে কমাচ্ছে বুড়াপ্পা।
হঠাৎ একি চেয়ে দেখি আসছে বেজায় তেড়ে!
”আরে, আরে, দুম! কে গেল রে মেরে?”

চালাচ্ছে কেউ ভীষণ জোরে, দেখাচ্ছে সে রবাব।
ধরলে আইন, করবে ফাইন, শোধরাবে না স্বভাব।
চলতে গিয়ে এঁকে বেঁকে লাগাচ্ছে কেউ খোঁচা।
নতুন গাড়ির নাক খানা কেউ দিচ্ছে করে বোঁচা।
আসছে পুলিশ, শুনছে নালিশ, লিখছে রিপোর্ট ঝেড়ে।
”আরে, আরে, দুম! কে গিয়েছে মেরে?”

কেউ বা শোনে ফুল ভল্যুমে নেত্য করার গান।
কেউ বা কানে টেলিফোনে শুধুই বক-বকান।
কেউ বা আবার তাল বুঝে ভাই, শেষ করে নেয় ভোজ।
কেউ বা আবার কায়দা করে দাড়ি কামায় রোজ।
ঐ যে বালক গাড়ির চালক রাত-দুপুরে ফেরে!
”আরে, আরে, দুম! কে পালাল মেরে?”

ভাবছ এ সব আজব কথা, মিথ্যে কথা মস্ত?
এ সব কথা আজগুবি নয়, বলছি তোমায় স্পষ্ট।
নিত্য হেথায় গাড়ি চালায় দু-চার পেগের ঘোরে।
লাগছে আঁচর, ভাঙছে পাঁজর, যাচ্ছে কেহ মরে।
দেখবে তুমি এই শহরেই যাচ্ছে নিয়ম হেরে।
”আরে, আরে, দুম! জানটা নিলো কে রে?”

© 2011 - 2022 Raktim Sen. All rights reserved.